শিল্পকলা একাডেমি ও শূন্য আর্ট স্পেসের যৌথ আয়োজনে

ছাপচিত্র প্রদর্শনী ‘শেষ থেকে শুরু’

shunno

শিল্পকলা একাডেমি ও শূন্য আর্ট স্পেসের যৌথ আয়োজনে ছাপচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ

।চিত্রম প্রতিবেদক। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও শূন্য আর্ট স্পেসের যৌথ আয়োজনে পক্ষকালব্যাপী এক ছাপচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন হলো আজ ১৬মে শনিবার। বাংলাদেশ জাতীয় চিত্রশালায় ‘শেষ থেকে শুরু’ শীর্ষক এই প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন বরেণ্য শিল্পী অধ্যাপক রফিকুন নবী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্পেন প্রবাসী শিল্পী মনিরুল ইসলাম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিশিষ্ট শিল্পসমালোচক মঈনুদ্দীন খালেদ।
শিল্পী রফিকুন নবী বলেন, শিল্পের এক অনন্য মাধ্যম ছাপচিত্র। শিল্পীর সৃজনশীলতাকে শানিত করার জন্য ছাপচিত্রের প্রদর্শনী বেশি হওয়া দরকার।
শিল্পী মনিরুল ইসলাম বলেন, আগের তুলনায় আমাদের দেশে এখন অনেক ভালো কাজ হচ্ছে। ছাপচিত্র আন্দোলনের অগ্রযাত্রায় ক্রমান্বয়ে আরও ভালো কাজ হবে বাংলাদেশে।
শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী বলেন, ছাপচিত্রের প্রসারে এ ধরনের প্রদর্শনীর আয়োজন ভূমিকা রাখবে। বড় পরিসরে ছাপচিত্র স্টুডিও স্থাপনের প্রস্তাব পেশ করেছি সরকারের কাছে। এটি বাস্তবায়ন হলে ছাপচিত্রের কাজ আরও বেগবান হবে বলে আশা করি।

মঈনুদ্দীন খালেদ বলেন, ছাপচিত্র ইতিহাসের উপাদান হিসেবে কাজ করে। শিল্পরুচি উন্নত করতেও ছাপচিত্রের ভূমিকা কম নয়।

প্রদর্শনীতে সফিউদ্দিন আহমেদ, কামরুল হাসান, কাইয়ুম চৌধুরী, আব্দুর রাজ্জাক, কাজী আব্দুল বাসেত, রশিদ চৌধুরী প্রমুখ প্রথিতযশা শিল্পীর পাশাপাশি সমসাময়িক নবীন শিল্পীদের ছাপচিত্রও প্রদর্শিত হচ্ছে। এ যেন নবীন-প্রবীণের এক মেলবন্ধন।
আয়োজকদের পক্ষ থেকে শূন্য আর্ট স্পেসের প্রধান নির্বাহী জাফর ইকবাল বলেন, এদেশের ছাপচিত্র চর্চার আনুপূর্বিক বৃত্তান্ত শিল্পরসিকদের কাছে তুলে ধরতেই এই আয়োজন। এটি ধারাবাহিক প্রদর্শনী হিসিবে বিভিন্ন পর্যায়ে তুলে ধরবে নানা শিল্পীর ছাপচিত্র। নবীন-প্রবীণ সব ধরনের শিল্পীর অংশগ্রহন থাকবে এতে। প্রদর্শিত কাজগুলো প্রধানত ব্যক্তিগত সংগ্রহ থেকে ধার করা। শিল্পকলা একাডেমির সংগ্রহেরও অনেকাংশ এতে যুক্ত হয়েছে। তবে কোনো কেনা-বেচার হিসেব নেই এ প্রদর্শনীতে। এই আয়োজন শুধুই প্রদর্শনীর। ছাপচিত্রের ঐতিহ্য এবং বৈচিত্র্য উপস্থাপন করাই মুখ্য উদ্দেশ্য। ছাপচিত্র কিংবা প্রিন্ট মেকিংয়ের মর্ম উপলব্ধির জন্য আয়জন করা হয়েছে সেমিনারের। দেশি-বিদেশি তাত্ত্বিক ও শিল্পরসিকদের অংশগ্রহণে বিশ্লেষিত হবে ছাপচিত্রের নান্দনিক ও সামাজিক গুরুত্ব।
প্রদর্শনী চলাকালীন আয়োজিত সেমিনারে উপস্থাপিত প্রবন্ধ ও এবং প্রাসঙ্গিক আরও তথ্য ও মন্তব্য সমন্বিত একটি প্রকাশনাও বের করা হবে।
প্রদর্শনী চলবে আগামী ৩০মে পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা। শুক্রবার বেলা ৩টা থেকে রাত ৮টা।

FacebookTwitterGoogle+Google GmailPinterestLinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ফেসবুকে চিত্রম

সর্বশেষ সংবাদ

মাসিক আর্কাইভ

নিউজলেটার পেতে সাবসক্রাইব করুন

     Read More »