৩ দিনব্যাপী শেখ ফজলুল হক মনি সাংস্কৃতিক উৎসব

শেখ ফজলুল হক মনি

শেখ ফজলুল হক মনি

।চিত্রম প্রতিবেদক। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে এবং জেলা শিল্পকলা একাডেমি গোপালগঞ্জের ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মতো ২৮ জানুয়ারি গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত হচ্ছে ৩ দিনব্যাপী শেখ ফজলুল হক মনি সাংস্কৃতিক উৎসব।

বেলা আড়াইটায় শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি মিলনায়তনে সাংস্কৃতিক উৎসবে প্রধান অতিথি থাকবেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, জেলা পরিষদের প্রশাসক চৌধুরী এমদাদুল হক, পুলিশ সুপার এস. এম. এমরান হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাহবুব আলী খান।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. খলিলুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য দেবেন খোন্দকার এহিয়া খালেদ সাদী। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেবেন জেলা কালচারাল অফিসার মামুন বিন সালেহ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকছে শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতিকথন ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা প্রদান, জেলা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীদের অ্যাক্রোবেটিক দলের অনুষ্ঠান পরিবেশনা। উৎসবের দ্বিতীয় দিন ২৯ জানুয়ারি থাকছে উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি, কাশিয়ানী, মধুমতি শিল্পী গোষ্ঠী, সুর সন্ধ্যান শিল্পী গোষ্ঠী, ত্রিবেণী গণ সাংস্কৃতিক সংস্থার সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

অনুষ্ঠানের সমাপনী দিন ৩০ জানুয়ারি থাকছে উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি, মুকসুদপুর ও টুঙ্গিপাড়া, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, চন্দ্রিমা শিল্পী গোষ্ঠী এবং উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

শেখ ফজলুল হক মনি ১৯৩৯ সালের ৪ ডিসেম্বর গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ছাত্রজীবন থেকেই শেখ মনি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। ১৯৬০-১৯৬৩ সালে তিনি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৬৪ সালের এপ্রিল মাসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যালেন্সর ও পূর্ব পাকিস্তানের তৎকালীন গভর্নর আবদুল মোমেন খানের নিকট থেকে সনদপত্র গ্রহণে তিনি অস্বীকৃতি জানান এবং সরকারের গণবিরোধী শিক্ষানীতির প্রতিবাদে সমাবর্তন বর্জন আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তার ডিগ্রি প্রত্যাহার করে নেয়।

পরবর্তী সময়ে তিনি মামলায় জয়লাভ করে ডিগ্রি ফিরে পান। ১৯৬৫ সালে তিনি পাকিস্তান নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার হন এবং দেড় বছর কারাভোগ করেন।

১৯৬৬ সালে ছয়দফা আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালনের দায়ে তার বিরুদ্ধে হুলিয়া জারি হয় এবং তিনি কারারুদ্ধ হন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সামরিক বাহিনীর কতিপয় সদস্যের হাতে তিনি নির্মমভাবে নিহত হন।

FacebookTwitterGoogle+Google GmailPinterestLinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ফেসবুকে চিত্রম

সর্বশেষ সংবাদ

মাসিক আর্কাইভ

নিউজলেটার পেতে সাবসক্রাইব করুন

     Read More »