জাদুঘরে মসলিন উৎসব চলছে

muslin_research2_chitram।চিত্রম প্রতিবেদক। জাতীয় জাদুঘরে চলছে মাসব্যাপী মসলিন উৎসব। এ উৎসবে রয়েছে প্রদর্শনী, মসলিন পুনরুজ্জীবন নিয়ে সেমিনার, ফ্যাশন শো ও গ্রন্থপ্রকাশ সহ নানা আয়োজন। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় যৌথ ভাবে এ উৎসবের আয়োজন করেছে দৃক, জাতীয় জাদুঘর। উৎসবের বিশেষ পার্টনার আড়ং।

সম্প্রতি জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

তিনি বলেন, ‘আমরা শৈশবে মসলিন নিয়ে নানা গল্প শুনেছি। আমাদের ছোটবেলায় মসলিনের বিয়ের পাগড়ি ব্যবহৃত হতো। ১৯৫২ সালে মসলিনের সাথে আমার চাক্ষুষ পরিচয়। মসলিন ঢাকার সম্পদ। কিন্তু ব্রিটিশ শাসনের ফলে ঐতিহ্যবাহী মসলিন আমাদের হাতছাড়া হয়ে যায়। মসলিন পুনরুদ্ধারের যে চেষ্টা সম্প্রতি শুরু হয়েছে, আমি এর সাফল্য কামনা করি।’

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘হারিয়ে যাওয়া মসলিন নিয়ে এ উৎসব। ঐতিহ্যগত ভাবে মসলিন বাংলাদেশের সম্পদ। আমরা দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে পুনরুদ্ধার করতে চাই। মসলিন ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ নিতে প্রধানমন্ত্রী আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন। সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংস্কৃতির উপর হামলায় আমাদের ইতিহাসের বিরাট ক্ষতি হয়ে গেছে। আমরা ঐতিহ্যকে ধ্বংশ না করে পুনরুদ্ধার করতে চাই।’

দৃক-এর সিইও সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘গত দুই বছরের বেশি সময় ধরে দৃকের মসলিন টিমের গবেষণার ফল এই উৎসব। এ উৎসবের দ্বারা আমাদের উদ্দেশ্য মসলিন তৈরিতে আমাদের দেশের ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা সকলের সামনে তুলে ধরা।’

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব আকতারী মমতাজ, ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজের সিনিয়র ডিরেক্টর তামারা আবেদ, যুক্তরাজ্যের ভিক্টোরিয়া অ্যান্ড অ্যালবার্ট জাদুঘরের সিনিয়র কিউরেটর রোজমেরি ক্রিল প্রমুখ। সভাপতি ছিলেন জাতীয় জাদুঘরের ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি এম আজিজুর রহমান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতেই ছিল মসলিন নিয়ে একটি স্লাইড প্রদর্শনী। অনুষ্ঠানে অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণের পাশাপাশি ছিল নতুন পর্যায়ে মসলিন নির্মাণের সাথে যুক্ত তাঁতীদেরকে সম্মাননা। আবুল হোসাইন, নূর মোহাম্মদ, আকলিমা বেগম, জোবেদা, জোহরা, জিনাতুন ও আল আমিনকে তাঁতী হিসেবে সম্মাননা দেওয়া হয়।

এছাড়াও এ উৎসব উপলক্ষে দুটি স্মারক ডাকটিকিট, দশ টাকা মূল্যের একটি উদ্বোধনী খাম এবং পাঁচ টাকা মূল্যের একটি ডেটা কার্ড প্রকাশিত হয়েছে। অতিথিদের নিয়ে স্মারক ডাকটিকিট উন্মোচন করেন অর্থমন্ত্রী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডাক বিভাগের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (ডাক সার্ভিস) হাওলাদার মো. গিয়াসউদ্দিন এবং পরিচালক (স্ট্যাম্পস) মো. মুনছুর রহমান মোল্লা। এছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দৃক থেকে প্রকাশিত মসলিন বিষয়ক গবেষণাধর্মী গ্রন্থ ‘মসলিন আওয়ার স্টোরি’-এর মোড়ক উন্মোচিত হয়।

 

জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী গ্যালারীতে চলছে এ প্রদর্শনী। এতে রয়েছে দৃক বেঙ্গল মসলিন টিমের বয়ন করা ‘আধুনিক মসলিন’ শাড়ি। মাসব্যাপী এ উৎসব শেষ হবে ৪ মার্চ।

FacebookTwitterGoogle+Google GmailPinterestLinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ফেসবুকে চিত্রম

সর্বশেষ সংবাদ

মাসিক আর্কাইভ

নিউজলেটার পেতে সাবসক্রাইব করুন

     Read More »