শুরু হচ্ছে দক্ষিণ এশীয় সাংস্কৃতিক কনভেনশন

udichi_chitram।চিত্রম প্রতিবেদক। ঢাকায় তিন দিনব্যাপী সামাজ্যবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী ‘দক্ষিণ এশীয় সাংস্কৃতিক কনভেশনের’ আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী। আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ কনভেনশন চলবে।

১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে এ কনভেশনের উদ্বোধন করবেন প্রবীণ বিপ্লবী কমরেড জসীম উদ্দিন মণ্ডল, কামাক্ষ্যা রায় চৌধুরী ও অধ্যাপক যতীন সরকার।

কনভেনশনে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরসহ বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা।

বুধবার সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) ছোট মিলনায়তনে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক প্রবীর সরদার এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, কনভেশনে সার্কভুক্ত আটটি দেশ ছাড়াও চীন, জাপান, ভিয়েতনাম ও মায়ানমারসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে সংগ্রামরত সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এছাড়া তুরস্ক ও ফিলিস্তিন এ কনভেশনে যোগদানের আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

কনভেনশনে অংশগ্রহণের বিষয়টি এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, আফগানিস্তান ও জাপানসহ বেশ কয়েকটি দেশ। ভারত থেকে অংশ নেবে বেশ কয়েকটি সংগঠন, যারা তাদের বৈচিত্র্যময় পরিবেশনা তুলে ধরবেন।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শুভেন্দু মাইতি, শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার, সাংস্কৃতিক সংগঠক রতন বসু মজুমদার, বিশিষ্ট সাংবাদিক মালিনী ভট্টাচার্য, প্রখ্যাত কলামিস্ট রতন খাসনবীশ প্রমুখ কনভেনশনে উপস্থিত থাকবেন।

এছাড়া পাকিস্তানের প্রগতিশীল সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রাহাত সাঈদ, জাপানের লোক সংস্কৃতি গবেষক নাওমি ওয়াতানাবে উপস্থিত থাকবেন।

প্রবীর সরদার বলেন, উদ্বোধনী পর্বের পর তিনদিন ধরে দক্ষিণ এশিয়ায় সাম্রাজ্যবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সাংস্কৃতিক সংগ্রামের ধরণ ও নানা অভিজ্ঞতা বিনিময় করা হবে। অংশগ্রহণকারী দেশি-বিদেশি প্রতিনিধিদের আলোচনা, মতামত ও সম্মতির ভিত্তিতে তৈরি করা হবে ‘ঢাকা ঘোষণা’, যেটি কনভেনশনের শেষ দিন বিকেলে পাঠ করা হবে।

তিনি বলেন, কনভেনশনে ‘এরশাদ আলী’ নামে একজনকে হাজির করা হবে, যিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত নৃশংসতম গণহত্যাগুলোর অন্যতম খুলনার চুকনগরে অসংখ্য মৃতদেহের মধ্য থেকে একটি শিশুকে উদ্ধার করে তাকে স্ব-ধর্মমতে বড় করে মানবতার অনন্য উদাহরণ স্থাপন করেছেন।

বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক বলেন, কনভেনশনের অংশ হিসেবে উন্মুক্ত চিত্রকর্ম প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। সেরা চিত্রকর্ম অঙ্কনকারীকে কনভেনশন চলাকালে দক্ষিণ এশীয় সম্মাননা দেয়া হবে।

কনভেনশনে সারা দেশে উদীচীর তিন শতাধিক শাখা সংগঠন থেকে আগত প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন বলে জানান তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রবীর সরদার বলেন, এ কনভেশন সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারলে ভবিষ্যতে এর কলেবর বাড়িয়ে আন্তর্জাতিক কনভেনশনের আয়োজন করার চেষ্টা করা হবে।

কনভেনশনে পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানানো প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পাকিস্তানেও প্রগতিশীল আন্দোলনের অনেক ব্যক্তি রয়েছেন। তাদেরকে আমন্ত্রণ জানাতে কোনো অসুবিধা থাকার কারণ নেই। সরকারের কোনো আপত্তি করার কথা নয়। স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ও এ বিষয়ে অবগত রয়েছে। তাছাড়া সরকারও চেয়েছিল আমাদের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধভাবে এ কর্মসূচি পালন করতে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি অধ্যাপক বদিউর রহমান, শিবানী ভট্টাচার্য, শংকর সাওজাল; সহ-সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আনোয়ার তপন, প্রচার সম্পাদক কঙ্কন নাগ প্রমুখ।

 

FacebookTwitterGoogle+Google GmailPinterestLinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ফেসবুকে চিত্রম

সর্বশেষ সংবাদ

মাসিক আর্কাইভ

নিউজলেটার পেতে সাবসক্রাইব করুন

     Read More »